মেনু নির্বাচন করুন

কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের আদি ভিটা

বাংলা সাহিত্যের প্রবাদ পুরুষ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বাংলা সাহিত্য সংস্কৃতি তথা বাঙালী জাতীকে বিশ্বের কাছে উন্নীত করেই ক্ষান্ত হননি তিনি বস্ত্তত বাঙালী জাতী সত্তার প্রান পুরুষ হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিতকরেছেন তার বহুদা বিস্তৃত প্রতিভায়। স্বাভাবিক কবিবরীন্দ্রনাথের পাশাপাশি ব্যক্তি মানুষ রবীন্দ্র নাথ কে সহজ সত্যে ধারন করতে হয়েছে তার পূর্ব পুরুষের উত্তরাধিকারকে। এই বংশজাত উত্তরাধিকারের ঐতিহাসিক ধারায় অবিচ্ছেদ্যভাবে, ভৌগলিক সীমার আবর্তে তিনি আবর্তিত না হয়েও, ভৌগলিক অবস্থানের ঐতিহাসিক পরিচয়কে অস্বিকার করতে পারেননি। আর তাই খুলনা জেলার রূপসা উপজেলার ৫ নং ঘাটভোগ ইউনিয়নের অধীন পিঠাভোগ গ্রাম রবীন্দ্রনাথের পিতৃকূলের ইতিহাসের সাথে অবিচ্ছিন্ন ভাবে জড়িত। রবীন্দ্রনাথের জীবন এবং বংশগত ধারা আলোচনা করতে গেলে এই পিঠাভোগ প্রাম এসে দাড়াই অপরিহার্য ভাবেযাকে অস্বিকার করার কোন যৌক্তিক হেতু নেই। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের তথা ঠাকুর বংশের পূর্বপুরুষ পিঠাভোগ গ্রামের কুশারী বংশের বিচ্ছিন্ন একটি লতিকা ঠাকুর বংশের পূর্বপুরুষ---এ সত্য ঐতিহাসিক ভাবে বিস্তৃত।

         

খুলনা জেলা রূপসা উপজেলার ৫ নং ঘাটভোগ ইউনিয়নের পিঠাভোগ এবং ঘাটভোগ ভৈরব তীরবর্তী একটি প্রাচীন জনপদ।ভৈরব অববাহিকার শ্রোতধারা ধরে যে সব জনপদ গড়ে তার অন্যতম প্রাচীন জনপদ পিঠাভোগ-ঘাটভোগ। ইতিহাস সাক্ষীদেয় হযরত খানজাহান আলীর আগমনের প্রায় দুই শতাব্দী আগেই এখানে জনপদ গড়ে ওঠে। পিঠাভোগের আদি গোত্রীয় ব্রাক্ষণ বাসিন্দা কুশারী গোষ্ঠীপতি বংশ।


Share with :
Facebook Twitter